উইন্ডোজ ইউজারদের জন্য কয়েকটা দরকারি টিপস

এখন পর্যন্ত সব থেকে জনপ্রিয় পিসি অপারেটিং সিস্টেম হলো উইন্ডোজ। উইন্ডোজ অনেক ফিচার এ ভরপুর একটি অপারেটিং সিস্টেম। তো আজ আমি উইন্ডোজ কম্পিউটার এর কিছু দরকারি টিপস নিয়ে আলোচনা করবো। সম্পূর্ণ আর্টিকেল পড়ার অনুরোধ রইলো। 

ব্লু লাইট ফিল্টার এনাবল করুন

আপনি কি দিনের অনেক বড় একটি সময় আপনার কম্পিউটার নিয়ে কাটান? আপনি যদি আপনার কম্পিউটার নিয়েই আপনার ক্যারিয়ার গড়েন তাহলে আপনার উত্তর অবশ্যই হ্যাঁ। আর যদি এরকমটাই হয় তাহলে আপনি নিশ্চয় চোখ থেকে পানি বের হওয়া অথবা মাথা ব্যাথা করা এরকম প্রব্লেম মাঝে মাঝেই ফিল করে থাকেন। এর পেছনে অনেক বড় একটা কারণ হলো আপনার কম্পিউটারের স্কিন থেকে আসা নীল আলো। সকল ইলেকট্রিক ডিভাইজ যেমন ধরুন আপনার মোবাইল কম্পিউটার ইত্যাদির স্কিন থেকে যে নীল আলোর রশ্মি বের হয় সেটা আমাদের সাস্থের অনেক ক্ষতিকর। তো আপনি যদি আপনার কম্পিউটারে ব্লু লাইট ফিল্টার ইউজ করেন তাহলে আপনার কম্পিউটার এই নীল আলো উৎপন্ন করা অনেক অংশে কমিয়ে দেবে। ফলে আপনার সাস্থ ঝুঁকিও অনেক কমে যাবে তাই না!। তো আপনি যদি ব্লু লাইট ফিল্টার এনাবল করতে চান তাহলে নিচের পদ্ধতি অনুসরণ করু।  


এখন তো উইন্ডোজ 7 ডেড হয়ে গেছে তাই বেশির ভাগই উইন্ডোজ 10 ইউজ করেন তাই উইন্ডোজ 10 এ কিভাবে এনাবল করবেন সেটাই দেখাবো। উইন্ডোজ 10 ডিফল্ড ভাবেই এই ফিচার পেয়েছে যেটা উল্লেখযোগ্য ভাবে নীল আলো প্রতিরোধ করতে পারে। ফলে আপনার থার্ড পার্টি কোনো সফটওয়্যার ইউজ করা লাগবে না। তবে আপনি যদি উইন্ডোজের পুরাতন কোনো ভার্সন ইউজ করেন তাহলে 'Blue Light Protector' নামক সফটওয়্যার ইউজ করতে পারেন।
  • প্রথমে উইন্ডোজ মেনুতে ক্লিক করে সেটিংস সিলেক্ট করুণ।

  • সেটিংস হোম পেজ থেকে সিস্টেম সিলেক্ট করুণ।
  • সিস্টেম সেটিংস থেকে ডিসপ্লে সিলেক্ট করুণ।
  • ডিসপ্লে সেটিংস এর মধ্যে 'Night Light' নামে একটি অপশন পাবেন এটা অন করে দিন।
  • তাছাড়া আপনি 'Night Light' সেটিংস থেকে নীল আলোর লেভেল কন্ট্রোল করতে পারেন।

নীল আলো ফিল্টারের জন্য কয়েকটি থার্ড পার্টি সফটওয়্যার:

নীল আলোর ফিল্টার ইউজ করলে নীল বাদেও অন্য সব কালার পরিবর্তন হয় কেন?

ওয়েল, যাদের কালার সম্পর্কে ভালো ধারনা আছে তারা নিশ্চয় জানেন সব কালার লাল, নীল এবং সবুজ এই তিনটি মৌলিক কালারের মিশ্রণের ম্যাধ্যমে তৈরী হয়। এই তিনটি কালারের সম্পূর্ণ রুপে মিশ্রণের মাধ্যমেই সাদা কালার তৈরী হয়। আর আপনি যদি সাদা কালার থেকে নীল কালার সম্পূর্ণ রুপে সরিয়ে নেন তাহলে এটা হলুদ বর্ণ ধারণ করে।

অনুরুপ ভাবে নীল কালার সরিয়ে নিলে সব কালারই পরিবর্তন হয়। তাই স্বাভাবিক ভাবেই নীল আলোর ফিল্টার ইউজ করলে অর্থাৎ নীল আলো কমিয়ে দিলে সব কালার পরিবর্তন হয়। সো, আপনার কম্পিউটারের স্কিনে নীল আলো দেখা যায় না মানে স্কিনে নীল আলো নেই সেটা কিন্তু মোটেও নয়। আশা করি বুঝে গেছেন।

সিঙ্গেল ক্লিকে ফাইল এবং ফোল্ডার ওপেন করুন



আমরা সকলেই জানি উইন্ডোজে কোনো অ্যাপ্লিকেশন, প্রোগ্রাম, ফাইল, ফোল্ডার ওপেন করার জন্য ডাবল ক্লিক করতে হয়। অ্যাপ্লিকেশন, প্রোগ্রাম এগুলো রান করানোর জন্য ডাবল ক্লিক করতে হয় সেটা ঠিক আছে বাট প্রতিটি ফাইল এবং ফোল্ডার ওপেন করার জন্য ডাবল ক্লিক করতে হয় এটা আমার মোটেও ভালো লাগে না। আপনাদের কেমন লাগে সেটা বলতে পারবো না কিন্তু আমার আসলেই বোরিং লাগে। তো বন্ধুরা আমার মতই যাদের ডাবল ক্লিক করে ফাইল এবং ফোল্ডার ওপেন করতে যারা বোরিং ফিল করেন তারা চাইলে সিঙ্গেল ক্লিক এনাবল করতে পারেন।

Follow Steps Bellow:

  • প্রথমেই আপনার উইন্ডোজ কম্পিউটারে ফাইল ম্যানেজার ওপেন করে 'This PC' অথবা 'My Computer' ওপেন করুন।




  • উপরে অপশন বারে থাকা 'File' অপশনে ক্লিক  করে 'Change folder and search options' সিলেক্ট করুন।



  • Single-click to open an item সিলেক্ট করে OK বাটনে ক্লিক করুন।



তেমনি ভাবেই সিঙ্গেল ক্লিক ডিসএবল করার জন্য একই ভাবে 'Double -click to open an item' সিলেক্ট করে 'OK' বাটনে ক্লিক করুন, তাহলেই সিঙ্গেল ক্লিক ডিসএবল হয়ে যাবে।


সিএমডি ইউজ করে ড্রাইভ হাইড করুন


আমাদের সকলেরই প্রাইভেসি রয়েছে। আমরা প্রতিনিয়তই আমাদের কম্পিউটারে বিভিন্ন পার্সোনাল ডাটা সংরক্ষন করি। তবে অনেক ক্ষেত্রেই এরকম চান্সেস থেকেই যায় যে কোনো ভাবে আমাদের সেই ডাটা অন্য কারো হাতে পৌঁছে যেতে পারে। তবে আমরা কম্পিউটারের যে ড্রাইভে বা হার্ড ড্রাইভ পাটিশনে আমাদের ডাটা সেভ করেছি সেটাই আমরা যদি ড্রাইভ লিস্ট থেকে হাইড করে রাখি তাহলে কেমন হয়? অনেক ভালো হয় তাই না! তো যারা হাইড করতে চান তারা নিচের পদ্ধতি অনুসরন করুন।


  • - প্রথমেই আপনার কম্পিউটার ওপেন করে যে ড্রাইভ হাইড করতে চান সেটার নাম নোট করুন।
  • - উইন্ডোজ মেনু থেকে কমান্ড প্রোম্পোটের উপর মাউস রাইট ক্লিক করে 'Run As Administrator' সিলেক্ট করুন।




  • - 'Diskpart' কমান্ড লিখে এন্টার প্রেস করুন।


  • - 'List Volume' কমান্ড লিখে এন্টার প্রেস করুন। তাহলে আপনাকে আপনার কম্পিউটারের সব ড্রাইভের লিস্ট দেখাবে।


  • - মনে করুন আমি 'F' ড্রাইভ হাইড করবো আর 'F' ড্রাইভ লিস্টের 2 নাম্বারে আছে তাই আমাকে কমান্ড দিতে হবে 'Select Volume 2' , একই ভাবে অন্য কোনো ড্রাইভ হাইড করতে চাইলে সেই নাম্বার অনুযায়ি কমান্ড দিয়ে এন্টার প্রেস করতে হবে।


  • - এবার আমাকে  'F' ড্রাইভ হাইড করার জন্য 'Remove Letter F' কমান্ড দিয়ে এন্টার প্রেস করতে হবে। এমনি ভাবে আপনি যে ড্রাইভ হাইড করতে চান সে অনুযায়ি কমান্ড দিতে হবে, তাহলেই আপনার সিলেক্ট করা ড্রাইভ হাইড হয়ে যাবে।

কমান্ড দেওয়ার আগে
কমান্ড দেওয়ার পরে


তো বন্ধুরা যেহেতু ড্রাইভ হাইড করেছেন তাহলে তো কখোনো না কখোনো আনহাইড করতে হবেই তাই না! তো তাহলে চলুন এবার দেখে নেওয়া যাক কিভাবে আন হাইড করবেন।
  • ১- প্রথমেই ১ থেকে ৫ পর্যন্ত স্টেপগুলো ফলো করুন।
  • ২- সবশেষে 'Assign Letter F' কমান্ড দিয়ে এন্টার প্রেস করতে হবে। এমনি ভাবে আপনি যে ড্রাইভ হাইড করতে চান সে অনুযায়ি কমান্ড দিতে হবে, তাহলেই আপনার সিলেক্ট করা ড্রাইভ হাইড হয়ে যাবে।



যে কোনো ওয়েবসাইট টাস্কবারে পিন করুন


 আমরা যদি আমাদের দৈনন্দিন প্রয়জনিও ওয়েবসাইট গুলো কম্পিউটারের টাস্কবারে পিন করে রাখি তাহলে ভিজিট করতে অনেক সুবিধা পাওয়া যায়। আমিতো আমার সব প্রয়জনিও সাইট পিন করে রাখি।
 তো যারা ওয়েবসাইট গুলো টাস্কবারে পিন করতে চান তারা নিচের পদ্ধতি অনুসরন করুন। 

  • প্রথমেই ক্রোম ব্রাউজার ওপেন করে আপনি যা সাইটটি পিন করতে চান সেটাতে প্রবেশ করুন।
  • সাইট লোড হওয়া শেষ হলে ক্রোম ব্রাউজারের টপ-রাইটে থাকা থ্রি ডট মেনুতে ক্লিক করে more tools এঁর উপর হোভার করে create shortcut... সিলেক্ট করুন।

  • create shortcut... এ ক্লিক করলেই একটা পপআপ উইন্ডোতে আপনি কি নামে শর্টকাট তৈরি করতে চান সেটা দিতে বলবে। তো আপনার ইচ্ছা মতো নাম দিয়ে Create এ ক্লিক করুন।
  • Create এ ক্লিক করলেই এটা আপনার কম্পিউটারের হোম স্কিনে অলে যাবে।
  • এবার আপনার কম্পিউটারের হোম স্কিনে এসে শর্টকাট টি খুজে বের করুন।
  • খুজে পেলে শর্টকাট এঁর উপর রাইট ক্লিক করে Pin to taskbar সিলেক্ট করুন তাহলেই ওয়েবসাইট আপনার কম্পিউটারের টাস্কবারে পিন হয়ে যাবে।

তো বন্ধুরা এই ছিল আজকের আর্টিকেল। আশা করি আপনাদের কাজে আসবে। আগামীতে দেখা হবে অন্য কোনো আর্টিকেলে, ধন্যবাদ

0/মন্তব্য করুন/টি মন্তব্য

নবীনতর পূর্বতন