ব্রাউজারে ওয়েবসাইট লোড হচ্ছে না? ফিক্স করুন!

গড়ে একজন কম্পিউটার ইউজার ব্রাউজারের একটি উনিন্ডোতেই ২০ থেকে ৩০ টি ওয়েবসাইট ওপেন করে। একটি উনিন্ডোতেই অনেক বেশী ওয়েবসাইট ওপেন করার ক্ষেত্রে কোনো ভুল নেই, তবে কখনো কখনো আমাদের ব্রাউজার কিছু ওয়েবসাইট ওপেন করতে ফেইল্ড হয়। ওয়েব ব্রাউজ করার সময়, আমরা প্রায়শই এমন সমস্যায় পরি যখন নিরদিষ্ট কোনো সাইট ব্রাউজারে লোড হয় না। সাইটটিতে সার্ভার সমস্যা, মেয়াদোত্তীর্ণ ডোমেইন, হোস্ট প্রব্লেম ইত্যাদির বিভিন্ন কারণে এই ব্যাপারটি ঘটে।

কারণ যাই হোক না কেন, যদি কোনো নির্দিষ্ট ওয়েবসাইট আপনার কম্পিউটারে ওপেন না হয়, তবে আপনি অনেক কম পরিশ্রম করেই এটা ফিক্স করতে পারেন। যেহেতু আপনি কোনও নির্দিষ্ট ওয়েবসাইট ওপেন করতে না পারার একাধিক কারণ থাকতে পারে, তাই কম্পিউটারে ওয়েবসাইট সম্পর্কিত সমস্যা গুলি সমাধান করার জন্য আমি কয়েকটি সাধারণ পদ্ধতি শেয়ার করছি। তো চলুন শুরু করা যাক।

1. কন্টেন্ট ইস্যু

কোনও বিশেষ ওয়েবসাইট আপনার ব্রাউজারে ওপেন না হওয়ার পেছনে কি কারন হতে পারে? হতে পারে সাইটটি বিভিন্ন আপত্তিকর বা অবৈধ কন্টেন্ট ছরানোড় জন্য আপনার দেশের সরকার সেটা ব্যান করে দিয়েছে। প্রতি বছরই এরকম কারনে অনেক সাইট ব্যান করা হয়ে থাকে। এই প্রব্লেম সল্ভ করার জন্য আপনি ভিপিএন ইউজ করে ব্লকটি বাইপাস করে সাইটটি আনব্লক করতে পারেন। এছাড়াও বিভিন্ন প্রক্সি সাইট আছে যেগুলো ইউজ করে আপনি কোনো ব্লোকড সাইট আনব্লোক করতে পারেন। তবে আমরা কখোনোই ভিপিএন ইউজ করে সরকার কতৃক ব্লককৃত ওয়েবসাইট আনব্লোক করার পক্ষে নই।

২. সার্ভারের প্রব্লেম

ওয়েব সাইটগুলি হোস্টিং ব্যবহার করে তাদের গুরুত্বপূর্ণ ডেটা সঞ্চয় করে এবং সেই ডাটা ইন্টারনেটে উপস্থাপন করে।  ইন্টারনেটে ডাটা উপস্থাপনের কাজটি হোস্টিং কোম্পানিগুলো তাদের সার্ভার দ্বারা করে থাকে। সার্ভারের সমস্যার কারনেই যদি এই প্রব্লেম হয়ে থাকে তাহলে শুধু হোস্টিং কোম্পানি গুলোই এই প্রব্লেমের সমাধান করতে পারে।

সার্ভার কোম্পানির লোড সেডিং, সাইটে ডিডিওস অ্যাাটাক বা হার্ডওয়্যার সমস্যার মতো প্রব্লেম সহ বিভিন্ন কারণে সাইটের সার্ভার প্রব্লেম হতে পারে। এই জাতীয় পরিস্থিতিতে, ওয়েবসাইটের মালিক সমস্যা সমাধান না করা পর্যন্ত আপনাকে অপেক্ষা করতে হবে।

৩. ওয়েব ব্রাউজারের ফল্ট

আপনার বন্ধু যদি সাইটটি ওপেন করতে সক্ষম হয় কিন্তু আপনি করতে না পারেন তবে আপনার ব্রাউজারের প্রব্লেমের কারনে এটি হতে পারে। এই ধরনের প্রব্লেমের ক্ষেত্রে আপনি আপনার ব্রাউজার পুনরায় সেটআপ করে ট্রায় করতে পারেন।

Read More:


৪. কম্পিউটার ইস্যু

আপনি যদি অন্য সব কম্পিউটার সাইটটি ওপেন করতে সক্ষম হন কিন্তু কোনো নিরদিষ্ট কোনো ডিভাইজ থেকে ওপেন করতে প্রব্লেম হয় আর সেটা ব্রাউজার সেটআপ করেও সেটার সমাধান না হয় তাহলে সেটা আপনার কম্পিউটারের ফায়ারওয়াল বা অ্যান্টিভাইরাস সফ্টওয়্যার এর মতো কম্পিউটার সফ্টওয়্যার থেকে সাইটটি ব্লোক থাকতে পারে। তাই আপনি সাময়িক সময়ের জন্য ফায়ার ওয়াল বা অ্যান্টিভাইরাস ডিসএবল করে ট্রায় করতে পারেন।

৫. রাউটার সমস্যা

কখনও কখনও, রাউটার সমস্যাগুলির কারনে ওয়েবসাইট ওপেন না হওয়ার মতো প্রব্লেম হতে পারে। সমস্যাটি ডিএনএস সার্ভারগুলির উপর নির্ভর করে যা রাউটারটি ব্যবহার করছে। সুতরাং, ব্রাউজার সমস্যা না খোলার কিছু ওয়েবসাইট ঠিক করার জন্য আপনাকে ডিএনএস সার্ভারের ঠিকানা পরিবর্তন করতে হবে এবং রাউটারটি পুনরায় চালু করতে হবে।

৬. ডিএনএস ক্যাশে ফ্লাশ করুন

কিছু উইন্ডোজ 10 ব্যবহারকারী দাবি করেছেন যে তারা ডিএনএস ক্যাশে ফ্লাশ করে ব্রাউজারে কোনো সাইট লোড না হওয়ার প্রব্লেমটি সলভ করতে সক্ষম হয়েছেন। তাই আপনিও এই পদক্ষেপ অব্লম্বন করতে পারেন।

  • এই পদক্ষেপ করার জন্য ‘কমান্ড প্রম্পট’ ওপেন করুন।
  • কমান্ড প্রম্পট উইন্ডোতে, ‘ipconfig / flushdns’ টাইপ করুন এবং এন্টার চাপুন। 
  • এবার ‘কমান্ড প্রম্পট’ উইন্ডো ক্লোজ করে আপনার পিসি রিস্টার্ট করুন।



৭. নেটওয়ার্ক অ্যাডাপ্টারগুলি অক্ষম করুন

অনেক সময় আমরা একই সাথে একাধিক নেটওয়ার্ক এডাপ্টার ইউজ করার জন্য দুইটি নেটওয়ার্ক এডাপ্টার মিলে সমস্যার সৃষ্টি করে। অনেক উইন্ডোজ ইউজার দাবি করেন যে তারা আনইউজড নেটওয়ার্ক এডাপ্টারটি ডিসেবল করে ওয়েব সাইট লোড না হওয়ার প্রব্লেমটি সল্ভ করতে সক্ষম হয়েছেন। তো আপনিও ট্রায় করে দেখতে পারেন।


তো এই ছিল আজকের আর্টিকেল। আপনার কাছে যদি অন্য কোনো উপায় জানা থাকে তাহলে সেটা কমেন্টে জানবেন, ধন্যবাদ

0/মন্তব্য করুন/টি মন্তব্য

নবীনতর পূর্বতন