গুগল ক্রোমের বিকল্প হিসেবে ৭ টি সেরা ওয়েব ব্রাউজার

ইন্টারনেটের জগতে ওয়েব ব্রাউজার অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি জিনিস। বর্তমানে অনেক ওয়েব ব্রাউজার রয়েছে। এই অনেক গুলো ওয়েব ব্রাউজারের মধ্যে এখন গুগল ক্রোম পুরো পৃথিবী জুড়ে রাজত্ব করছে। অ্যামিও ক্রোম ব্রাউজার ইউজ করছি, এবং আমি মনে করি আপনিও ইউজ করতেছেন। ক্রোম ব্রাউজার আসলেই অনেক ভালো একটি ব্রাউজার। এর জনপ্রিয়তার পেছনে অনেক বড় একটি কারণ হলো এর সহজ এবং সুন্দর ইউজার ইন্টারফেস। তাছাড়া এক এক্সটেনশন লাইব্রেরি অনেক সমৃদ্ধ। ক্রোম ওয়েব স্টোরে আপনি প্রয়োজনিয় সব এক্সটেনশন পেয়ে যাবেন। ক্রোম ব্রাউজারে আমি কোনো ধরনের প্রব্লেম খুজে পাই না! তবুও আপনি যদি ক্রোম ব্রাউজার ইউজ করে বোর হয়ে পরেন তাহলে এর বিকল্প হিসেবে কয়েকটি ব্রাউজার সাজেস্ট করলাম।


1. Mozilla Firefox


গুগল ক্রোমের পরে আমার প্রথম চয়েস সর্বদাই ফায়ারফক্স ব্রাউজার। আর আপনি যদি একটি ভালো পারফরমেন্স এর ব্রাউজার খুঁজেন তাহলে এটাই আপনার জন্য সবার সেরা হতে পারে। যদিও এখন গুগল ক্রোম সবচেয়ে বেশী ইউজ করা হয়, তারপরেও আপনি যদি দেখতে যান যে এখন পর্যন্ত কোন ব্রাউজার সবচেয়ে বেশী ইউজ করা হয়েছে তাহলে সবার প্রথমে নাম উঠে আসবে ফায়ারফক্সের। এর এক্সটেনশন লাইব্রেরিও কিন্তু গুগল ক্রোমের মতোই সমৃদ্ধ। তাই আমি আশা করব গুগল ক্রোমের পরে এটা আপনারও প্রথম চয়েস।

2. Safari 


সাফারি ব্রাউজার ম্যাকওএস এবং আইওএস এর জন্য গুগল ক্রোমের সেরা বিকল্প হতে পারে। ম্যাকওএস এবং আইওএস এর ডিভাইজে এই ব্রাউজার প্রি ইনস্টল থাকে, তাই কোনো ঝামেলা ছাড়াই ম্যাকওএস এবং আইওএস এর ডিভাইজে সাফারি ব্রাউজার ইউজ করা যেতে পারে। এই ব্রাউজারটি আগে উইন্ডোজের জন্যও ছিলো, কিন্তু এখন সেটা সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। তাই আপনি এখন এটা শুধু অ্যাপলের ডিভাইজেই ইউজ করতে পারেন।

3. Microsoft Edge


উইন্ডোজ ডিভাইসের জন্য এটা আপনার জন্য একটি ভালো সলিউশন হতে পারে। এই অনেক দ্রুত গতির একটি ব্রাউজার। 4K ভিডিও স্ট্রিম করার জন্য এটি একটি অসাধারন ব্রাউজার। আর মাইক্রোসফট এটা খোলাসা করে দিয়েছে যে তাদের এই ব্রাউজার সম্পূর্ণ রুপে সিকিউর। সো, আপনি নিশ্চিন্তেই উইন্ডোজ ডিভাইজে এই ব্রাউজার ইউজ করতে পারেন।

4. Opera (New Verson)


বেশ কিছু ফিচারের জন্য ওপেরা এর নুতুন ভার্সনটি অসাধারন একটি ব্রাউজার হয়ে উঠেছে। এই নুতুন ভার্সনটিতে বিল্ডইন ভাবে এ্যাড বুলোকার এবং ফ্রি ভিপিএন (VPN) থাকছে। এই ব্রাউজারে আপনি একই সাথে চ্যাটিং এবং ব্রাউজিং করতে পারেন, কেননা এতে বিল্ডইন ভাবে ফেসবুক মেসেঞ্জার এবং হোয়াটস আপ থাকছে। তো আর কি? ইনস্টল করে ইনজয় করুণ!

5. Vivaldi


ওপেরা সফটওয়্যারের সিইও(CEO) এবং কো-ফন্ডার Jon von Tetzchner (যিনি ২০১১ সালে ওপেরা থেকে বের হয়ে আসেন) এই ব্রাউজারটি ডেভলপ করেছেন। সকল ব্রাউজারের মতো সকল বেসিক ফিচার সহ বেশ কিছু ইউনিক ফিচার এতে রয়েছে। এর ফিচারগুলো উপভোগ করতে চাইলে ইনস্টল করে ফেলুন, আর কি!

6. Maxthon Nitro


এই ব্রাউজারটি অতোটা জনপ্রিয় নয়। তবে এতে প্যাকড রয়েছে কিছু পাওয়ারফুল ফিশার্স। এটা অনেক লাইট ওয়েট এবং ফাস্টেস্ট একটি ব্রাউজার। তাই আপনি যদি আপনার সিস্টেম ভারি না করেই একটি চটপটে টাইপের ব্রাউজারের খোঁজ্‌ করেন তাহলে আপনি এটা ট্রায় করতে পারেন।

7. Torch


এটা অনেক রিচ ফিচার যুক্ত একটি ব্রাউজার যেটা আপনি আপনার উইন্ডোজ কম্পিউটারে ইউজ করতে পারেন। হয়তো আপনি বিশ্বাস করবেন না যে, এই ব্রাউজারে বিল্ডইন ভাবে টরেন্ট ম্যানেজার, মিডিয়া প্লেয়ার, মিডিয়া ডাউনলোডার, অ্যাড ব্লোকার সহ অসাধারন কিছু ফিচার রয়েছে। সেই সাথে এর ইউজার ইন্টারফেস সত্যিই অসাধারন।


তো বন্ধুরা এই ছিলো ক্রোম ব্রাউজারের বিকল্প হিসেবে সেরা ৭ টি ব্রাউজার। এর মধ্যে আপনার কোনটি পছন্দ সেটা অবশ্যই কমেন্ট সেকশনে জানাবেন, ধন্যবাদ।

4/মন্তব্য করুন/টি মন্তব্য

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

নবীনতর পূর্বতন